বিয়ে ভাঙলে কত খরচ জানেন? দেখে নিন এদের বিয়ে ভাঙ্গার খরচ…

0
1076

সাধারন লোকেদের বিয়ে ভাঙলে খরচ একরকম। বলিউড সেলেবদের বিয়ে ভাঙলে খরচ আলাদা। এবং অনেক সময়েই এইসব খরচের পরিমান বা মাত্রা দেখলে আপনাদের মাথা খারাপ হয়ে যেতে পারে।  আসুন দেখে নি কিছু বলি তারকা কিভাবে খরচা করেছেন বিবাহ বিচ্ছেদের পর।

বাবা-মা’র বিরুদ্ধে গিয়ে তারা একে অপরকে বিয়ে করেছিলেন তারা ।ভালবাসা মিশে ছিল সে বিয়েতে।  তাদের দুজনের ডিভোর্স হয় আমিরের উদাসীনতার জন্য। কি পরিমাণ টাকা খোরপোশ বাবদ দেওয়া হয়েছিল সেই খবর প্রকাশ্যে না এলেও, সেটি বেশ মোটা অঙ্কের টাকা ছিল।

রানী মুখার্জী এবং আদিত্য এখন সুখী দম্পতি। কিন্তু অনেকেই জানেন না, এর জন্য আদিত্যকে কতটা খরচ করতে হয়েছিল। আদিত্যর প্রথম স্ত্রী পায়েল তার ছোটোবেলার প্রেমিকা ।  সম্পর্কের দিন দিন অবনতি হয় এবং তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। পায়েল বেশ মোটা অঙ্কের খোরপোশ দাবি করেছিলেন ডিভোর্সের সময় তাই বিবাহ বিচ্ছেদে দেরি হয় । যদিও খোরপোশের মূল্য প্রকাশ পায়নি, তবুও তা আনুমাণিক ৫০ কোটি হবেই।

বলিউডের পরিচালক অনুরাগের সাথে কাল্কির প্রথম দেখা হয় “দেভ ডি” সিনেমার সেটে। তাদের ২০১১ সালে বিয়ে হয়। কিন্তু ২০১৫ সালে তাদের বিবাহ-বিচ্ছেদের ঘটনা সামনে আসে এবং কাল্কি বিপুল পরিমাণ খোরপোশ দাবি করেন। অনুরাগের বোম্বে ভেলভেট বক্স অফিসে ব্যাপকভাবে মুখ থুবড়ে পড়াই কাল্কি সামান্য পরিমাণ খোরপোশ নিতে রাজি হয়ে যান। এদের মধ্যে এখনো বন্ধুত্বের সম্পর্ক বিদ্যমান।

১৬ বছর একসাথে বিবাহ জীবন কাটানোর পর ২০১৭ সালে তাদের ডিভোর্স হয়। সূত্র মোতাবেক, ফারহান মাসিক খোরপোশ দেওয়ার বদলে এককালীন খোরপোশ দেন। পাশাপাশি অধুনা তাদের দশ হাজার স্কোয়ার ফিটের ব্যান্ডস্ট্যান্ডের বাংলো (Vipassana) নিজের কাছে রাখার কথা বলেন। তাদের সন্তানদের জন্যও ফারহানকে বেশ ভালো রকম টাকা খরচ করতে হয়। তাদের সন্তান অধুনার তত্ত্বাবধানেই থাকে এবং ফারহান ইচ্ছে করলে তাদের সাথে দেখা করতে পারে।


বলিউডের সবচেয়ে বিখ্যাত কাপল এবং যাদের প্রেমের কথা সকলে উদাহরন হিসেবে দিত তারাও করেছিলেন বিবাহ বিচ্ছেদ। সূত্র অনুযায়ী সুজান খোরপোশ বাবদ প্রায় ৪০০ কোটি টাকার দাবি করেন ২০১৪ সালে তাদের বিবাহ-বিচ্ছেদের সময়। ঋত্বিক তাকে ৩৮০ কোটি টাকা দেন। যদিও আবার তারা বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হবেন বলেই খবর।

বর্তমানে প্রভুদেবা বলিউডের বিখ্যাত ড্যান্সার এবং কোরিওগ্রাফারদের মধ্যে একজন। তাদের দুজনের দু’টি সন্তানও রয়েছে। তাদের বিবাহ-বিচ্ছেদ সম্পন্ন হয় ১০ লাখ টাকার খোরপোশের মাধ্যমে। পাশাপাশি তিনি প্রাক্তন স্ত্রীকে দু’টি দামি গাড়ি দেন এবং তার নামে ২০-২৫ কোটি টাকার সম্পত্তি করে দেন।

 

তাদের দুজনের বয়সের বিশাল অন্তর ছিল ১৩ বছরের। আশ্চর্য্যজনকভাবে তাদের বিয়েও টিকেছিল ১৩ বছর। ডিভোর্সের পর অমৃতা মোটা অঙ্কের খোরপোশ দাবি। এই সম্বন্ধে পুরনো এক সাক্ষাৎকারে সঈফ জানান, “আমি অমৃতাকে ৫ কোটি টাকার মত দেব। আপাতত ওকে ২.৫ কোটি টাকা দিয়েছি। এরপর প্রতিমাসে ১ লাখ করে টাকা দেব যতদিন না আমাদের সন্তান ১৮ বছরের হয়। আমি শাহরুখ খান নই, একসাথে এত টাকা দিতে পারবো না। তবে মরার আগে অবধি আমি সমস্ত টাকা দিয়ে দেব।”

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here